গ্রামিনফোন ক্রিস্টাল ( আমার রম bangal gp 2.2.2 ) রিভিউ ।

ভেবেছিলাম এত কম বাজেট + স্পেসিফিকেশনের পচা মোবাইল নিয়ে রিভিউ না লেখাই উত্তম  donttell। কিন্তু ফোরামের কয়েকজন হালকা পাতলা আলোচনা এবং নিজের কিছু একটা ক্ষমতার ফলে রিভিউ লিখতে বাধ্য হলাম ।
প্রথমেই বলে নেই গ্রামীনফোন ক্রিস্টাল আসলে টি মোবাইলের স্পন্সর করা ( !) হুয়াওয়ের একটি মোবাইল। যার মডেল u8500।

https://i1.wp.com/image.cellbazaar.com/images/253600ac-33f6-43e7-8a89-aaec74d5c095.jpg

স্পেসিফিকেশন দেখতেঃ http://www.gsmarena.com/huawei_u8500-3451.php .
প্রথমে জি এস এম এরেনাতেই দেয়া ছিল 3.5mm অডিও জ্যাক নাই । কিন্ত পরে দেখি আছে( কিনার পর দেখি জি এস এম এরেনাও ঠিক করে দিল ) । আর হ্যা নতুন ভার্সনে আপগ্রেড করার পর ( নতুন ভার্সন জিপির অফিসিয়াল সাইটেই আছে )রুট করার বহু চেষ্টা করেও সফল হই নাই ।  neutral
তো আসুন দেখে নেই এই ফোনের সুবিধাগুলো। ( স্পেকের বাইরে )
১। কম দাম ( ১২,১৬০ টাকা ) । এ টাকায় দুই বছরের ওয়ারেন্টি ওয়ালা এন্ড্রয়েড ফোন বাজারে আর নেই ।
২। স্টাইলিস লুক এবং অসাধারন ডিস্প্লে । ফোন দেখার সময় ১৬ পর্যন্ত বাজেটে গিয়েছিলাম । কিন্তু একটারো লুক এবং ডিস্প্লে রেজুলেশন পছন্দ হয় নাই ।
৩। armv6 600 MHz প্রসেসর । সাধারন এপসমুহ এবং মাল্টিটাস্কিং এর জন্য ভালই । যদিও মাঝে মাঝে  nailbiting
৪।  স্ক্রিনশট এপ হিসেবে স্ক্রিনগ্রাবার ব্যাবহার করি। রুট ছাড়াই স্ক্রিনশট নেয়া যায় ।
৫। জিপির রমে ডিফল্টভাবেই ডকুমেন্টস টু গো নামক সফট ওয়্যার দেয়া থাকে । যা দিয়ে অনায়েসে পিডি এফ এবং ওয়ার্ড ফাইল পড়তে পারবেন ।
৬। টেথারিং (ইউএসবি এবং হটস্পট ) এর জন্য রুট লাগে না ।

অসুবিধা সমুহঃ
১। রুট করতে পারি নাই। তাই বাংলা সাপোর্ট আসে নাই  (সমাধানঃ আপনি যদি জিপির অফিসিয়াল সাইট হতে ফ্রয়োর রম নামান তাহলে সেটা হবে 2.2.2 । আর এটা রুট সাপোর্ট করে না । আর হুয়াওয়ের কাছ থেকে নামালে হবে 2.2.1 এটা z4root অথবা সুপার ওয়ান ক্লিক দিয়ে রুট করা যাবে । কিন্তু হুয়াওয়ে কেন জানি ফ্রয়োর আপডেট টা রিমুভ করে দিছে ।তাই পরবর্তী ভার্সনের অপেক্ষায়। )
২। ওয়াই ফাই দিয়ে পিসির সাথে কানেক্ট করতে পারছি না । কিন্তু অন্য ওয়াই ফাইর সাথে কানেক্ট হচ্ছে । ( যদিও কানেক্টিফাই এর মতামত অনুযায়ী সমস্যা আমার ল্যাপ্টপ এর ড্রাইভারে )
৩। জাভা চালানোর জন্য কোণ ভাল এমুলেটর পাচ্ছি না। যেটা আছে( যে বি ই ডী )  সেটা দিয়ে বাটন আনা যায় না । সুতরাং কোণ কিছু ইনপুট  করতে সমস্যা হয় । আর হ্যা এর জন্য একটা লং প্রসেস সমাধান আছে । একটা অনলাইন jar to apk কনাভার্টার আছে কিন্তু খুব স্লো । ২০০ কেবির একটা ফাইল কে কনভার্ট করতে ১ঘন্টা-১.৩০ মিনিট লেগে যায় ।
৪। টাচ টা খুব একটা ভাল না । যদিও আমার সমস্যা হয় না। (অন্যান্য রিভিউ থেকে লিখলাম)
৫। ক্যামেরাটার ও একই অবস্থা ।
৬। ডিফল্ট লি যে হেডফোণ টা দেয় ওটা দিয়ে গান শুনলে মনে হবে এর চেয়ে রেডিও শুনাও ভাল ।
৭। বোরিং স্টার্টাপ টাইম ।

কিনার আগে যে সমস্ত পয়েন্ট মনে রাখবেনঃ

১। আপনার যদি এন্ড্রয়েডে গেম খেলার (এংরি বার্ড এবং কয়েকটি পাজল গেম বাদে ) ইচ্ছা থাকে তাহলে এ সেট টিকে আপনার পছন্দের তালিকা হতে বাদ দিতে পারেন।  tongue
২।যারা কম দামে এন্ড্রয়েড এডভেঞ্চারে নেমে পড়তে চান তাদের জন্য বেস্ট সেট বলা যেতে পারে।
৩।বাংলা সাপোর্টেড না । তবে অপেরা মিনি পদ্ধতি কাজ করে ।
৪। যাদের জিপির ওয়ারেন্টি পলিসি নিয়ে এলার্জি আছে তাদেরকে ব্যাপারটা ক্লিয়ার করে দেইঃ যে সিমই ব্যাবহার করেন না কেন ওয়ারেন্টি পাবেন ১৮ মাস । আর যারা জিপি একটানা ১৮ মাস ব্যাবহার করবেন। তাদের জন্য রয়েছে এক্সটেন্ডেড ৬ মাসের ওয়ারেন্টি ।

অতিরিক্তঃ
১।যারা ডিফল্ট হেডফোন দিয়ে মিউজিক শুনতে শুনতে  বোরিং হয় যাবেন তারা কম খরচে (৩৫০টাকা) ক্রিয়েটিভের নিচের ছবিতে দেয়া হেডফোণ গুলা কিনতে পারেন । আইডীবিতে পাবেন।

https://i1.wp.com/www.lunashops.com/images/upload/Image/creative-earphone-2.jpg

২। ফোনের সাথে ডিফল্টভাবে কোন স্ক্রিন প্রোটেক্টর দেয়া থকে  না। আর এই সেটের জন্য স্পেসিফিক কোন স্ক্রিন প্রটেকটর পাবেন না । তবে বসুন্ধরা সিটি তে গেলে অরা অন্যটার স্ক্রিণ প্রটেক্টর কেটে লাগিয়ে দিবে। দাম ৮০ টাকা( বোনাস হিসেবে একটা ছোট কাপড় ও পাবেন মুছার জন্য )  tongue

৩। এ সেটের জন্য কোন বক্স কভার পাবেন না। তবে পাউচ কভার পাবেন । ভাল কভারের দাম ৮০-১২০ টাকা । smile

৪। ব্যাটারিটা অনেক কমন ব্যাটারি । যারা স্মার্টফোন নিয়ে জার্নি বেশি করেন বা অনেক বেশি ইন্টারনেট ব্যাবহার করেন । কিনে নিতে পারেন অতিরিক্ত একটি ব্যাটারি । দাম ৩০০- ৬০০ টাকা । smile

স্ক্রিনশট
১। https://i0.wp.com/a3.sphotos.ak.fbcdn.net/hphotos-ak-ash4/313884_2498265659170_1328744306_33019490_1060523511_n.jpg
মিডল হোমস্ক্রিন ।

২।  https://i1.wp.com/a8.sphotos.ak.fbcdn.net/hphotos-ak-ash4/321559_2474960796563_1328744306_33001238_1523111195_n.jpg
উইন্যাম্প উইজেট এবং ওয়েদার আপডেট । মিউজিক প্লেইং ।

৩।  https://i1.wp.com/a2.sphotos.ak.fbcdn.net/hphotos-ak-snc7/314646_2474961476580_1328744306_33001239_1815244979_n.jpg
এপসমুহের একাংশ ।

৪। http://a3.sphotos.ak.fbcdn.net/hphotos-ak-snc7/299565_2498225778173_1328744306_33019484_576190470_n.jpg]
এন্ড্রয়েড এসিস্টেন্স হতে স্ক্রিনশট।

৫। https://i0.wp.com/a5.sphotos.ak.fbcdn.net/hphotos-ak-snc7/316208_2498232058330_1328744306_33019485_92136478_n.jpg
বেঞ্চমার্ক sad

৬।https://i2.wp.com/a8.sphotos.ak.fbcdn.net/hphotos-ak-ash4/s720x720/299861_2497273074356_1328744306_33018969_578817575_n.jpg
ক্যামেরা কোয়ালিটি ।

পরিশেষে কেমন লাগল এ রিভিউ টি ? জানাতে ভুলবেন না । ( যদিও জানি আমার লেখা রিভিউ এবং অন্যান্য (! ) বিরক্তিকর হয় ) । আর বিরক্ত করব না । আজ এটুকুই । ধন্যবাদ ।  smile

প্রজন্ম ফোরামের মেহেদী ৮৩ ভাইয়ার করা কিছু গুরুত্বপুর্ন পয়েন্ট ( আপনাদের কাজে লাগতে পারে )

১) ক্যাপাসিটিভ টাচ আর রেসিস্টিভ টাচ এর মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে ক্যাপাসিটিভ টাচ জোরে চাপলে কিন্তু কাজ করে না। স্লাইট টাচ এবং পয়েন্টেড টাচ করতে হবে, তাহলে হালকা টাচেই কাজ করে।  রেসিস্টিভ টাচের মত জোরে চেপে কোন লাভ নাই।

২) তারেক ভাই এরটাও ARM v6 600Mhz, আমার টা ARM V6 turbo (800Mhz) একই জিনিস। আপনার সমস্যা প্রসেসর এ না, র্যাম এর।  তাছাড়া ডিসপ্লেতে বাড়তি ইউজেট চালু করলে রাখলে সেগুলো র্যাম খায়, বেশ ভালই র্যাম খায়, বাড়তি হোমস্ক্রীন+উইজেট থাকলে সেগুলোও ব্যাটারী এফেক্ট করে। আমার ফোনের হোমস্ক্রীণ মাত্র ১টা এবং সেখানে ২টা উইজেট আর ৪টা এ্যাপ শর্টকাট মাত্র।

৩) এন্ড্রয়েডের ক্যামেরা নিয়ে প্রায় সব সেটেই কম বেশী অসন্তোষ থাকে নাকি। সেই দিক থেকে এই ক্যামেরা খারাপ বলা যায় না। বলতে পারেন শুধু ক্যামেরার কারনেই দাম বেড়ে যেতে পারে অনেকখানি।

৪) স্টার্টআপ কত সময় লাগে ?? প্রায় সকল ফোনেরই স্টার্টআপ টাইম একটু বেশীই সম্ভবত (HTC নতুনগুলো বাদে ওগুলোতে হাইবারনেট জাতীয় কিছু ফীচার আছে যেকারনে বুট অনেক ফাস্ট)
আমার গ্যালাক্সী এইস সিস্টেম স্টার্টআপ ৫৭ সেকেন্ড + এ্যাপ চালু করতে ১মিনিটের মত। সব মিলিয়ে দেড় থেকে দুই মিনিট। sad

৫) গেম যদি এংগ্রী বার্ড খেলা যায়, তাহলে অনেক গেমই খেলা যাবে। একটু বেশী গ্রাফিকাল গেম খেলতে গেলে বিপদ কারন আপনার সম্ভবত আলাদা জিপিইউ নাই। আমি Adreno 200 নিয়েই কিছু জিনিসে আটকে যাই। sad

৬) ফ্রয়ো থেকে ডিফল্টভাবেই  ইউএসবি/ওয়ারলেস টেথারিং সাপোর্ট দেয়া আছে, আলাদা এ্যাপ ছাড়াই কাজটা করা যায়, অতএব রুট না লাগাই স্বাভাবিক।

৭) ব্যাটারী ইস্যু আসলে নির্ভর করে ব্যাবহারের উপর, আমার এবং বেঙ্গল বয়ের একই ফোন। আমার টা আজকে ৩দিন পর চার্জে লাগাইলাম। বেঙ্গল বয়ের টা প্রায় প্রতিদিনই চার্জে দিতে হয়।
উল্লেখ্য, ওয়াইফাই, জিপিএস এগুলো প্রচুর চার্জ খায়, কাজেই দরকার না হলে এগুলো অফ রাখেন। গান শুনলে চার্জ সহজে শেষ হয় না। আমি প্রায় ১২ঘন্টা গান শুনেছি টানা, তারপরও কথা বলার জন্য অনেক চার্জ ছিল।  তাছাড়া, র্যামের উপর দরকার না হলে চাপ কমান, অপ্রয়োজনীয় এ্যাপ বন্ধ করে দিতে পারেন, হোমস্ক্রীণ যতটুকু দরকার সেই কয়টাই রাখেন, উইজেট না রাখাই বেটার, এগুলো ব্যাকগ্রাউন্ডে মূলত পুরা এ্যাপটাই চালাতে থাকে সবসময়, কাজেই সে ব্যাটারী নিতে থাকে।  আর রেজ্যুলেশন 320×480, তুলনামূলক বেশিই ব্যাটারী খাওয়ার কথা।

একই সাথে প্রজন্ম ফোরামে প্রকাশিত ।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: